January 23, 2018 11:29 pm

এমন সময় দরজা খুলে গেলো

01. বিদেশ ফেরত ছেলেকে বাবা জিগ্গেস করছে-
বাবাঃ বিদেশে দিন কেমন কাটল?
ছেলেঃ খুব ভাল
বাবাঃ তুমি ইংরেজী কথা বলতে কোন সমস্যা হয় নি ত?

ছেলেঃ আমার কোন সমস্যা হয়নি। তবে যারা শুনেছে তাদেরসমস্যা হয়েছে

02. এক গরু বিক্রেতা কোরবাণীর পশুর হাট থেকে গরু নিয়ে বাড়ী ফেরার পথে ডাকাতে ধরলো!
ডাকাত, এই ব্যাটা, কী কী আছে দে!
গরু বিক্রেতা, ভাই, আমার কাছে কিছুই নাই!
ডাকাত, কিছু নাই কেন ?
গরু বিক্রেতা, ভাই,গরুটা বিক্রি করতে পারি নাই।
ডাকাত, গরুটা বিক্রি করতে পার নাই কেন?
গরু বিক্রেতা, ভাই,গরুটার দাম কম বলেছে, তাই বিক্রি করি নাই।
ডাকাত, “এই ব্যাটা, গরুটার দাম কম হলে আমরা টাকা কম পেতাম, তুই গরুটা বিক্রি করলিনা কেন?

03. শিক্ষকঃ বল্টু,নিউটন কে,
জানো?
বল্টুঃ জানি স্যার!
.
শিক্ষকঃ বলো দেখি,কি
জানো?


বল্টুঃ বিজ্ঞানীটি Newton,
.
তার কাজ ছিল রহস্য
উদঘাটন…!
.
তার বাড়ি ছিল
ওয়াশিংটন,
.
তার বাপের নাম কটন,
.
তার ভাইয়ের নাম ছোটন,
তার ছেলের নাম প্রোটন,
.
তার প্রিয় হোটেল
শেরাটন,
প্রিয়.খাবার মাটন,
.
তার ফ্রিজের
নাম.ওয়ালটন, প্রিয় বন্ধুর নাম
রতন,
.
প্রিয় খেলার নাম
ম্যারাথন . .
!
স্যার বেহুশ!!
04.☻চান্দু গেল তার
ছাত্রীকে প্রাইভেট পড়াতে
চান্দু তার ছাত্রীকে গণিত
শেখাচ্ছে………
↓ ↓
মনে কর, তোমার কাছে ৫
টা গোলাপ
আছে,
আমি তোমাকে আরো ৫
টা দিলাম। তাহলে, তোমার
কাছে মোট গোলাপ থাকবে ১০
টি,
এটা হল যোগ।
চান্দুঃ বুঝেছ ?অনেক মজা না ??
ছাত্রীঃ জ্বি।


এবার ধর আমার কাছে ১০
টা চকলেট আছে, আমি তোমাকে ৮
টা দিয়ে দিলাম
আমার কাছে ২
টা থাকবে।এটা হল বিয়োগ।
চান্দু:-বুঝেছ? অনেক মজা তাই
না?
ছাত্রী-: জ্বি।

এবার মনে কর, তুমি আমায়
তিনটা চুমু
দিলে, আর আমি তোমায় চুমু
দিলাম
১২ বার।
তাহলে মোট ৪ গুণ চুমু
তুমি বেশি পেলে, এটা হল
গুণ।
চান্দু-:বুঝেছো?অনেক মজা তাই
না?
ছাত্রী-:জ্বি।


দরজার পাশে দাঁড়িয়ে ছাত্রীর
বাপ
এতক্ষণ
সব শুনছিলেন। ঘরে ঢুকে চান্দুর
ঘাড়
ধরে দাঁড়
করিয়ে দরজার
কাছে নিয়ে গেলেন।



“তারপর
চান্দুকে সজোরে লাঁথি মেরে ঘর
থেকে বের করে বললেন, আর
এটা হল
ভাগ।

05. বান্ধবীকে রাতেরবেলা বাড়ি পৌঁছে দিতে এসেছে জিসান ভাই
দরজার পাশে দেয়ালে ভর দিয়ে দাঁড়িয়ে বললো সে,
একটা চুমো খেতে দাও আমাকে?
– কী, তুমি পাগল হলে? এখানে দাঁড়িয়ে না না না!
আরে কেউ দেখবে না। এসো, একটা চুমো
– না না, খুব ঝামেলা হবে কেউ দেখে ফেললে!
আরে জলদি করে খাবো, কে দেখবে?
– না না, কক্ষণো এভাবে আমি চুমো খেতে পারবো না
আরে এসো তো, আমি জানি তুমিও চাইছো

এমন সময় দরজা খুলে গেলো,
বান্ধবীর ছোট বোন ঘুম ঘুম চোখে দাঁড়িয়ে।
চোখ ডলতে ডলতে সে বললো,
‘আপু, বাবা বলেছে, হয়তুমি চুমো খাও,
নয়তো আমি চুমো খাই,
নয়তো বাবা নিজেই নিচে নেমে এসে লোকটাকে চুমো খাবে!
তবুও তোমার বন্ধু যাতে আল্লার ওয়াস্তে ইন্টারকম থেকে হাতটা সরায়।

06. এক পুলিশ অফিসার নতুন বিয়ে করেছেন।
নতুন বউ খুব সোহাগ করে খাবার বানিয়ে বরের জন্য প্যাক করে দিলেন।
দুপুরবেলা ভদ্রমহিলা ফোন করে বরের কাছে জানতে চাইলেন,
হ্যাঁগো, খাবারটা খেয়েছো? খেতে কেমন হয়েছে?

পুলিস অফিসার আহ্লাদিত হয়ে বললেন,
আরে তোমার বানানো খাবার দারুণ হয়েছে।
একটা আসামীর মুখে চেপে ধরতেই গড়গড় করে সব স্বীকার করে ফেললো!

Comments