January 23, 2018 12:01 am

বরাবরের মতই আমি ১০ টায় ঘুমিয়ে পড়বো।

তুমি ঠিক দুটোয় আমার কানের কাছে এসে ফিসফিস করে কথা বলবে। বলবে চলোনা ছাদে যাই, আজকের চাদটা অনেক কিউট। নয়তো মুখে একটু পানি ছিটাবে।

আমার ঘুম খুবই পাতলা। তাই হয়তো তোমার বলা প্রথম কথাতেই আমি জেগে যাবো।
তবুও আমি ঘুমের ভান করে শুয়ে থাকবো। তুমি আমাকে জাগাতে আরো কিছু পরিকল্পনা করবে।

নতুন কোন উপায়ে আমাকে জাগানোর চেষ্টা করবে।

কখনো গলায় কাতুকুতু দিবে, কখনো বা গালে চুমু দিবে
আমি চোখ বন্ধ করে সব দেখে যাবো!!

সবশেষে ব্যর্থ হয়ে তুমি পানি চিটাবে।

আমি উঠেই তোমাকে জড়িয়ে ধরবো। তুমি একটা ঝাড়ি দিয়ে আমাকে ছাদে নিয়ে যাবে।

সেখানে এক খন্ড চাঁদ আমাদের খুনসুটি দেখার অপেক্ষায় আছে।

ছাদে বসানো দোলনাতে আমি বাম পাশে বসবো।

তুমি এই ফাকে এক কাপ চা বানিয়ে আনবে।
চায়ের কাপ হাতে তুমি আমার ডান পাশে বসবে। এই জায়গায় বসলে নাকি তোমার আমার কাধে মাথা রাখতে সুবিধা হয়।

আমি তোমার হাত থেকে চায়ের কাপ্টা হাতে নিয়ে তোমাকে পাশে বসাবো। তারপর দুজনে চাদের দিকে তাকাবো।
ঐ দেখ এক গুচ্ছ তারাও আমাদের দিকে তাকিয়ে আছে।

তারাও আমাদের মত পাশাপাশি বসে কাধে মাথা রাখতে চাচ্ছে।

কিন্তু তাদের সে সুযোগ নেই।
তাই আমাদের দেখে হিংসায় জ্বলছে আর মিটিমিটি তাকাচ্ছে।

এরই মধ্যে হঠাৎ চাদের মাঝে এক টুকরো মেঘ এসে ছাদটা অন্ধকার করে দিবে। তুমি ভয় পেয়ে আমাকে আরো জোরে জড়িয়ে ধরবে।
আমরা থাকবো আরো কাছাকাছি।

ভয় কাটাতে আমি তোমার দিকে চায়ের কাপটা এগিয়ে দিবো।
তুমি এক চুমুক নিবে আর আমি এক চুমুক করে।
এভাবে একসময় চায়ের কাপে চা শেষ হবে।

কিন্তু আমাদের ভালোবাসা তখনো থামবে না।
রাত শেষ হয়ে ভোর হয়ে যাবে।
সঙ্গী আমরা দুজন। সাক্ষী থাকবে মেঘ সরে যাওয়া জ্বলজ্বলে চাঁদ।


কিন্তু কথা হল, মেয়েরা এত ভীতু কেন?????

Comments