January 23, 2018 8:09 pm

মানুষের মায়া

এক অদৃশ্য দেয়াল বিস্তৃত চারপাশে ;
অন্ধ চোখের সীমাহীন ভাবনার রাজত্বে বন্দি , তুমি- আমি ; আমরা সবাই ।
পবিত্রতা ভোগের নয় ; ভালোবাসার ;
জাগতিক সব সমাধি ,শ্মশান , ত্যাগের ইতিহাসে অভেদ্য অলীক ছাড় দেয়নি কাউকে ;
যে প্রনয়ে অপেক্ষা নেই ; জীবন্ত জ্বলে যাওয়া নেই ; কাছে পাওয়ার কষ্ট নেই ; সেটা স্বার্থ , সেটা লালসা, সেটা ব্যরথতা ।
আকাশ ও পৃথিবীর অনির্ণীত বিরহ ব্যথা ভেবে দেখ ;
সময়ে সময়ে মিশে যাওয়ার দুর্দান্ত প্রস্তাব আসে আকাশ থেকে ;
বিরহে কাতর হয়ে আকাশ পৃথিবীকে ডাকে “ ওহে অমৃতা , আমার প্রেয়সী ; মায়াময়ী ; আর কতদিন প্রতীক্ষায় থাকব ‘’
আকাশ ঝর ঝর করে কেদে ভালোবাসার কান্না বার্তা পাঠায় পৃথিবীকে ।
কিংবা
মায়াবি ধরনির প্রেম প্রত্যাশায় বজ্রে বজ্রে চিৎকার করে ক্ষোভ প্রকাশ করে ।
মাটি আকাশকে বলে “ বেদনা কি শুধু তোমার একার ; নিঃসঙ্গ কি শুধু তুমিই ;
তোমার বিরহে আমি কি ভাল আছি ; আমার কি জ্বালা- পোড়া হয়না ?
দেখ আমার বুক থেকে ভালোবাসার উত্তাপ আগ্নেয়গিরি হয়ে জ্বলছে ,
তোমার অশ্রু দিয়ে নদী বানিয়ে আমার বুক ভেঙ্গে বিদীর্ণ করছি ;
চেয়ে দেখ ব্যথায় পুড়ে কয়লা হয়েছে আমার অভ্যন্তর ; কান্নার জল শুকিয়ে মরুভুমি হয়েছে অন্তর ;দেখ কতটা ক্ষত – বিক্ষত আমার শরীর ।
আকাশ ভাষা হারিয়ে ফেলে ; পৃথিবীর অব্যাক্ত ভালবসার গভীরতায় আরও বেশি ভেঙ্গে পরে ; ভাসিয়ে দেয় ধরনির প্রেম উত্তাপ ,দুঃখ গুলো শীতল হয়ে শিলা বৃষ্টি হয়ে ঝোড়ে পরে ।
নিদাঘ নয়নে প্রশ্ন করে পৃথিবীকে; তোমার কিসে এত মায়া ?
পৃথিবী আচল সরিয়ে বলে দেখ “ আমার বুক জুড়ে কত মানব সন্তান ; ওদের কত আশা, সীমাহীন প্রত্যাশা ; ওদের ছোট্ট ছোট্ট অবুঝ সন্তান আমার ওপর খেলা করে ; হাঁটতে না শিখে উলটে পরে ; আমাকে ঘিরে ওদের কত স্বপ্ন ।
ওঁরা আমার সন্তান , আমার টিকে থাকার শক্তি , টুকরো টুকরো জীবনের অংশ ;
ওদের মায়াবি মুখ দেখেই ভুলে থাকি তোমার প্রণয় আবেদন ।
৬/৫/১৪ ( অনেক সংক্ষেপ করেছি ; অনেক সত্য নিবিড়তা গোপন করেছি; অনেক বড় হয় তাই )

মিলন বাঙালী

Comments

Leave a Reply