January 23, 2018 8:10 pm

‘শহীদ মিনারে খালেদা জিয়াকে বাধা দিলে ব্যবস্থা’পুলিশ

'শহীদ মিনারে খালেদা জিয়াকে বাধা দিলে ব্যবস্থা'

‘শহীদ মিনারে খালেদা জিয়াকে বাধা দিলে ব্যবস্থা’

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ও শহীদ দিবস উপলক্ষে ২১ ফেব্রুয়ারি বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়াকে শহীদ মিনারে যেতে কেউ বাধা দিলে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন ঢাকা মহানগর পুলিশের কমিশনার (ডিএমপি) মো. আছাদুজ্জামান মিয়া। শনিবার সকাল ১১টায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার এলাকার নিরাপত্তা ব্যবস্থা পরিদর্শনকালে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা জানান।

ডিএমপি কমিশনারকে প্রশ্ন করা হয়- ফুল দিতে এলে বিএনপি চেয়ারপার্সনকে প্রতিহতের ঘোষণা দেয়া হয়েছে। এ ক্ষেত্রে আপনাদের অবস্থান কী? জবাবে ডিএমপি কমিশনার বলেন, এ ধরণের কোনো তথ্য আমাদের কাছে নেই। এ দেশের জনগণ সবাই সমান। কেউ কাউকে বাধা দেবে, এটা কোনোভাবেই হবে না। এটা অ্যালাও (অনুমোদন) করব না।

তিনি বলেন, প্রত্যেকটি নাগরিকের নিরাপত্তা বিধান করা আমাদের দায়িত্ব। কেউ যদি বিশেষ নিরাপত্তার জন্য আবেদন করেন, আমরা তদন্ত করে যদি মনে করি, তার বিশেষ নিরাপত্তার দরকার আছে, তাকে অবশ্যই তা দেব। কেউ যদি কাউকে বেআইনিভাবে বাধা দেয় তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। এ সময় শহীদ মিনার চত্বরে ক্লোজড সার্কিট (সিসিটিভি) ক্যামেরাসহ চার স্তরের নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে বলেও জানান আছাদুজ্জামান মিয়া।

তিনি বলেন, দৃঢ়ভাবে বলতে পারি, আমাদের নিরাপত্তা চাদর ভেদ করে কেউ কোনো ধরণের আইনবহির্ভূত কার্যকলাপ করার সুযোগ পাবে না। ডিএমপি কমিশনার বলেন, শাহবাগ থেকে শুরু করে চানখারপুল হয়ে পলাশীর মোড় থেকে সায়েন্স ল্যাবরেটরি পর্যন্ত পুরো এলাকার প্রত্যেকটি কার্যক্রম সিসিটিভিতে মনিটরিং করা হবে।

তিনি বলেন, দোয়েল চত্বর-শাহবাগ-চানখারপুল-পলাশী এলাকায় যান চলাচল সম্পূর্ণ বন্ধ থাকবে। তবে পায়ে হেঁটে আসা যাবে। সব দিকের সাধারণ লোকজন পলাশীর মোড়ে অপেক্ষা করবেন। দোয়েল চত্বর দিয়ে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রীসহ ভিআইপিরা শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করবেন এবং একই পথ দিয়ে বের হয়ে যাবেন। ভিআইপিদের ফুল দেয়া শেষ হলে রাত ১২টা ৪৫ মিনিটে পলাশীর রাস্তা খুলে দেয়া হবে। তখন সাধারণ মানুষ শ্রদ্ধা জানাবেন, যোগ করেন আছাদুজ্জামান মিয়া।

বাড্ডায় ডিবির এক কর্মকর্তার ওপর জঙ্গিরা হামলা করেছে- মাতৃভাষা দিবসকে কেন্দ্র করে জঙ্গিরা তৎপর হয়ে উঠেছে কিনা, সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এটা চলমান প্রক্রিয়া। আমরা কখনও বলিনি, আমাদের হুমকি নেই। আমরা বলেছি- সুস্পষ্ট, সুনির্দিষ্ট হুমকি নেই। একটি মহল আইনশৃংখলা পরিস্থিতি অবনতি ও জননিরাপত্তা বিঘ্নিত করাসহ আমাদের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বকে বিতর্কিত করার অপপ্রয়াস চালাচ্ছে। যুদ্ধাপরাধীদের বিচার বাধাগ্রস্ত করার জন্য একটি চিহ্নিত মহল দেশবিরোধী ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। ফোকাস বাংলা।
www.ittefaq.com

Comments